ময়ুরাক্ষী মেঘ

আমাকে কাটলেই দেখি ঝর ঝর করে রক্ত পড়ে
এতো রক্ত আসে কোথা থেকে?
কাটতে কাটতে একদিন আমি এতো বেশী কাঁটা হয়ে গেছি
পুর্ব পুরুষ কে ছিল তা বেমালুম ভুলে গেছি; প্রাক্তন বলে কিছু ছিল, তাও
উধাও হয়ে গেছে ।মনে হচ্ছে নতুন চিপ্স মগজে ট্রান্সপ্লান্ট করেছে কেউ সঙ্গোপনে।
কতবার চেষ্টা করলাম সেদিনের সেই রহস্য ঘেরা আনন্দের কথা মনে করতে
পেপেটা সেদিন দারুণ স্বাসাদু ছিল
এর আশে পাশে কি ছিল, কেন ছিল তার কিছুই মনে পড়ছে না।
এই যা মনে না পড়া।।এর এক যাদুকরী সৌদর্য আছে, হয়ত কোন মনস্তাত্বিক
সেটা ব্যাখ্যা করতে পারবে। আমিও পারি। ধীর গতিতে, বর্ণমালা ধরে ধরে
কাদম্বরীর মৃত্যু রহস্য যেমন দেখেছিলেন কবি গুরু, তেমনি আমার নিঃশব্দ যাত্রা দেখছে সে
কাদম্বরীর ওপার হতে । হঠাত সে জ্বলে উঠে নিভে গেছে । কারণ কি ছিল জানিনা
তবে আমার মগজে ময়ুরাক্ষী মেঘ খুব ভালোভাবেই শেকড় গেড়ে বসে আছে। এতোটা পাব কোনদিন আশা করিনি। আর যা পেলাম তার কোন তুলনা হয় না। অব্যয় অক্ষয় অনুচ্চারিত সুন্দর।
প্রাগাঢ় ভালোবাসার মুদ্রন। একজন কবি বেঁচে থাক মেঘের আড়ালে মেঘ হয়ে
তাই যা কিছু ভুলে গেছি সব সব মেঘ হয়ে জমে আছে ময়ুরাক্ষির অন্তরালে ।

আমি আছি আত্মার গভীরে গভীর আত্মা হয়ে

0 মন্তব্য(গুলি):

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

About