অধরা

অধরা ঘুমিয়ে আছো
অন্ধকার ভবিষ্যত চোখের পাতায় নিয়ে।
রোজকার চাল-ডাল-তেল-নুনের মতো
চলে যাচ্ছে অমূল্য দিন।
সেফটিপিনের মতো ঝুলে গেছে অনেক কিছু
হাশ-ফাশ করা জীবনে অপমানবোধটাও মরে যাচ্ছে
বেড়ে যাচ্ছে সাহস!

বেপারোয়া চালকের মতো প্রতিবাদ,
তোমাকে বেহায়া নামে ভূষিত করেছে।
টুটি চেপে ধরতে ইচ্ছে করা, ইচ্ছেরা না বলেই
ঘুমরে মরছে, ভাষা নেই, এই যন্ত্রনায় পথ চলবার।

নিজেকেই দোষারুপ করছো
আঙ্গুল তুলে
অপরাধ এই যা! তুমি শুধু মেয়ে
চমকে যাচ্ছো মেয়েরা ধর্ষিতা হলে মৃত্যুদন্ডপ্রাপ্ত হয় বলে।

ভয় নেই অধরা!
অমর তো নও, নাগরিক যন্ত্রনার হাওয়া তোমারও প্রাপ্র্য ছিল।
তার বেড়াজালে তুমিই বা বাদ যাবে কেন?
জন্ম সাধনা করলে বলো নারী হওয়া যায়?
তুমি তো আর্শিবাদিনী।
মুঢ় পুরুষের জন্য না হয় থাকুক ক্ষমা

অধরা ঘুমিয়ে আছো?
এভাবেই অমরত্ম আঁধার বুকে জড়িয়ে।


0 মন্তব্য(গুলি):

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

About