ক্লান্তি ও তুমি

কেননা পাহাড়ের মত ক্লান্তি জমাতে জানো ।
ব-দ্বীপের মত বিস্ময়ে তাকিয়ে থাকি -
তোমার চলমান ক্ষয়ের স্পর্ধায় ।
থেমে যাওয়া আদর্শ নয়, তাই কি -
নির্জলা উপবাসে বসিয়েছ বিশ্রাম ।
বিসর্জনের শোক নেমে এলে বিছানায়
তুমি ঘুম ছুঁড়ে দাও নাগরিক খোঁয়াড়ে ,
জাগরণ সামলে সেরে নাও শোকার্ত অবগাহন ।
নিরুপায় কর্তব্যের কোলাহলে মুখ গুঁজে -
নাগরিকত্ব পালনে তুমি দ্বিধাহীন প্রেমিকা ।
পার্কের যে ঝোপে বসন্ত চিরহরিৎ
অক্লান্ত ওখানেই জেগে থাকে আত্মহত্যা ।
দুর্নিবার বৃক্ষের অনুযোগে কান রেখো না
প্ররোচনা ছুঁড়ে দেওয়া সরীসৃপের জিভেই মগ্ন হও ।
নির্বিচারে চাগিয়ে তোলো ক্লান্ত স্নায়ু
অসুখের মুখে গুঁজে দাও ছেলে ভোলানো টফি
তারপর , রপ্ত কর আয়ুর্বেদিক মৃত্যু ।
শুধু সূর্যশোকে আমাকেই বলতে দিও -
হে দ্বীধাহীন স্তব্ধতা তুমি স্ফীত হও,

আমার গ্লানির বোঝা বেড়েছে ।।

1 মন্তব্য(গুলি):

Soumitra Chakraborty বলেছেন...

আশ্চর্য এক জীবনগান। দুর্দান্ত!

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

About