ধরো, তুমি পাগল

একদিন দেখলে
দুটি রাস্তা , দু-দিকে
সাইনবোর্ড দেখলে -
একটায় লেখা
চোখ বুজে চলে এসো
রূপকথার দেশ দেখবে
আর একটায়
সাবধান -
ধরো তুমি পাগল
দ্বিতীয় রাস্তায় গেলে
সাদাকালো দৃশ্যপট
দেখছ নীতি - আদর্শের
ইঁট খোলা দিয়ে রাস্তা
একটু একটু চলছো আর
ভাঙা প্রেমের প্রেমে পড়ছ
সবাই তোমাকে বলছে
অকাল কুষ্মান্ড
আর তুমি খুব করে হাসছ
ইঁট খোলার লাল রঙ
মাখছো সারা গায়ে
আর ঝোলায় লুকাচ্ছ
 ভাঙা প্রেম
যাই হোক
এমনই চলতে চলতে একদিন
পায়ে ঢুকলো জং ধরা পেড়েক
রক্তে সাদা কালো ঘাস হল রামধনু
তুমি পাগল তবুও তোমার
ব্যাথা লাগল
ও রাস্তার দিকে তাকিয়ে ফেললে
দেখলে পক্ষীরাজ ঘোড়া
দেখলে সোনায় মোড়া হাতি
দেখলে হীরে বসানো জুতো
আর দেখলে -
রং মাখা রূপসী ঘিনঘিনে ঠোঁটে
খলখলিয়ে হাসছে
তোমার দিকে চেয়ে
তুমি তো পাগল
তাই কিছু হওয়ার কথা ছিল না
তবুও তোমার কষ্ট হচ্ছে
একপশলা ধিক্কারও দিলে নিজেকে
ভাবলে ফিরে যাই শুরুতে
বেশ -
এবার তুমি ফিরতে যাচ্ছ
ওমনি ইঁট খোলা টুপটাপ করে
চুমু খেলো তোমায়
তুমি তো পাগল
তাই তোমার মাথা ঘুরে গেল
আবার তুমি ঝোলা কাঁধে নিলে
আর একটু লাল রং মাখলে
এবার কিন্তু
তুমি আর থামবে না
হাঁটবে বহু দিন ধরে
ধরো এই হাজার বছর
কমবেশি -
তারপর ,
তারপর একদিন দেখবে
তোমায় পায়ের নিচে ধ্বংসস্তূপ
পাশের রাস্তার প্রত্নতাত্ত্বিক নিদর্শন
তখন তোমার পাগলামি বাড়বে
হাঁচরপাঁচর করে ইঁট খোলা খুঁজবে
সারাদিন সারারাত খুঁজবে খুঁজবে
না পেয়ে একদিন স্বাভাবিক হবে
তখন দেখবে
তুমি আকাশ গঙ্গার নিচে ব্রাত্য এক মানুষ
তোমার হাড় গুলো ইঁট খোলা হয়ে গেছে
আর তোমার প্রতিটা কোষে সভ্যতার বীজ
সাত্যকী দত্ত

কি আর করবে তখন
মট্ মট্ করে নিজের হাড় ভেঙে
কাজে লেগে পড়বে
কারণ তোমার তখন ভারি একা একা লাগবে
আচ্ছা ,তখন তুমি নিশ্চয়ই দুটো রাস্তা রাখবে না !

নাকি রাখবে - তোমার কোনএক পূর্বপুরুষের মতো ?

0 মন্তব্য(গুলি):

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

About