আমি আবার এসেছি

আমি আবার এসেছি
এই প্লাবণে ডোবা দূর্বাঘাস ছুঁয়ে দিতে
আমি আবার এসেছি
সাদা মেঘ জমা বাদলের পরশ নিতে।
আমি আবার এসেছি
ছায়াঘন এই বেতাল বিহগের সুরে
আমি আবার এসেছি
এই হৃদয়ের সব ব্যাকুলতা ফেলে ছুঁড়ে।
আমি আবার এসেছি
কাক ডাকা ভোরে কাজল কালো বিলে
আমি আবার এসেছি
নকশী কাঁথার অপ্রিয় ছন্দমিলে।
আমি আবার এসেছি
ব্যর্থতায় ভরা ব্যর্থ শিকল ছিঁড়ে
আমি আবার এসেছি
মুক্ত প্রাণের কুমার নদের তীরে।
আমি আবার এসেছি
স্বর্ণলতায়, বেগুনের ফুলে ফুলে
আমি আবার এসেছি
সুগন্ধি ভরা বকুলের এলো চুলে।
আমি আবার এসেছি
সুবাসিত ওই কদমের কুমোদ গন্ধে 
আমি আবার এসেছি
নূপুর পায়ে বাইজির মৃদু ছন্দে।
আমি আবার এসেছি
বেতস লতার কাঁটা ভরা বুক বনে
আমি আবার এসেছি
উদাস দূপুরে মায়াবীর মায়া মনে।
আমি আবার এসেছি
মাঝি হীন কোনো পাল তোলা নৌকা পরে
আমি আবার এসেছি
কোনো হাল ভাঙা এক  কৃষকের কুঁড়ে ঘরে।
আমি আবার এসেছি 
ক্ষুধাতুর এক দীন ভিখারীর বেশে
আমি আবার এসেছি
ভালোবাসা মাখা সোনার বাংলাদেশে।
আমি আবার এসেছি
মন মন্দিরে দীপ জ্বলা সন্ধ্যায়
আমি আবার এসেছি
শরৎ স্নিগ্ধ নীল রজনীগন্ধায়।
আমি আবার এসেছি
হৈমন্তি বাতাসে লক্ষ্মী পেঁচার ডাকে ;
আমি আবার এসেছি

আষাঢ়ের দেশে কৃষ্ণচূড়া শাখে।  

0 মন্তব্য(গুলি):

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

About