তার

তার কেটে গেলে তুলে নেবার অপেক্ষা । তখন দৃশ্য শ্রাব্য চব্য
চোষ্য বাহুল্য ওপর ওপর পার হয়ে যায় । পাত্তা না পাবার জন্য বিশেষ
অভিমান না রেখেই । আসলে এ তো জানাই , এই বৈরাগ্য
অনাদরের নয় , অনাসক্তির ।

দরজা নিয়ে নতুন কোনও অভিসন্ধি নেই । হাজার দুয়ারী
দরদালানের প্রবেশ প্রস্থানে তেমন সতর্কতা তো ছিল না , যা কিছু
আগমন , সাদরে গৃহীত , অসময়ের অনভিপ্রেত যাওয়াও খুব
আলোবাতাস কাড়ে নি । রি উইন্ড আর ফাস্ট ফরোয়ার্ড করে দেখলে
কারও কারও নাম বা মুখ ঝটিতি দেখা দিতে পারে ।

আজকাল কথায় কথায় স্বপ্ন আসে । গোল্ডেন এজ এর ।
প্রস্তাবিত , প্রতিশ্রুত । সিলভার লাইনিং বাড়ছে আর ফিরে আসছে
নিয়ানডারথ্যাল স্বপ্নযুগ । বিশাল কিছু হুজুগে পেরোই বয়েস
শত্তুরেও বলে না। বরং মৌনব্রত অনেক দুর্যোগ ডেকে আনে । সবাক
চলচিত্রে অবাক জলপান রোগ সেরে আরেক উপসর্গ হয়েছে । শ্মশান
বৈরাগ্যের নামাবলী চাপিয়ে ঘুরতে ঘুরতে হাঁপিয়ে উঠলে কয়েক প্রস্থ
স্ববিরোধী মিটিং মিছিলে হেঁটে আসি । জনতার মত লাগতে থাকে
পদক্ষেপ । আত্মরতির দিনকাল ফিরলেই বুঝি ফুরোয় নি নশ্বর ।

অশেষ

প্রথম আলোর বৃষ্টি ভেজা স্নানের পর
পুরু সরের নীচে গাঢ় কার্বন শৃঙ্খল
অনেকদিন পর তল দেখা দুষ্কর
আলগা টান থেকে পাখির চোখ হয়ে উঠেছ
নিঃশব্দ মেডিটেশানের একলা ধুপকাঠি

চুপ পেরিয়ে কিছু উচ্চারণ অন্তঃস্থ
সময় গুনতে গুনতে অন্য পদক্ষেপ ভাবছ
মুদ্রাদোষের দোহাই , এও আরেক রকম আমি
খুব চাও দাবী কর খুব কিছু বুঝছনা তাও
ছাল ছাড়ানোর পরবর্তী অনন্ত বাজছে

কালাশনিকভ রাগ পাকিয়ে উঠছে অন্ধকারে
বিশেষ থেকে সাধারণে বসিয়ে দিচ্ছে ঘুম
বিশ্বাস টপকে অভিমান টসটস তুমিও
রেপ্লিকা দেখছি বিশ সাল পহেলে আমি
ছেলেমানুষি বলে উড়িয়ে দিচ্ছি সব

হতে পারে ব্যস্ততার খুঁটিনাটি স্বাভাবিক
হতে পারে সকাল থেকে মধ্যরাত  চক্কর
হতে পারে পারমুটেশান কম্বিনেশানে বসাচ্ছ
এই মুঠো পথ ধুলো কুড়িয়ে কুড়িয়ে মঞ্জিল
এই চেয়ে থাকা অভিযোগের পরোয়া করে না



3 মন্তব্য(গুলি):

Pranab BasuRay বলেছেন...

আত্মরতির দিনকাল ফিরলেই বুঝি ফুরোয় নি নশ্বর...

Pranab BasuRay বলেছেন...

আত্মরতির দিনকাল ফিরলেই বুঝি ফুরোয় নি নশ্বর...

abu sayed বলেছেন...

ভালো লাগলো

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

About