আত্মা

মেয়েটির পরনে ট্যাটার্ড জিন্স আর টপ 
হাতে গীটার । ড্রামের তালে তালে গাইছে ,
মায়াবন বিহারিনী হরিণি
আমার ও বেশ দোলা লাগছে অঙ্গে 
আমার আত্মাও দেখি সঙ্গত করছে তাতে ।
অবাক হয়ে গেলাম । এ আমার হলটা কি ?
ছোটবেলা থেকে রবিগান শিখছি 
গানের কাকু বলতো ,
ওনার গান গাইতে হয় সাদা পোশাক পরে 
প্রতিবছর গানের পরীক্ষা দেবার সময়
মা একটা করে সাদা ফ্রক বানিয়ে দিতো
আমার মেয়ে এখন যেমন তেমন ভাবেই গায়
রবিগান ইংরেজী বাংলা হিন্দীতে গায় ও
কই , আমার তো মনে হয় না সরে গেছি একটুও
আত্মমগ্নতা থেকে , অনুভব থেকে ।
আসলে একটু একটু বুঝতে পারছি কারণটা । 
দর্শন , শান্তি , সৌম্য যে মুগ্ধতা আপনার সম্পদ
মরমের অন্তঃস্হলে একবার প্রবেশ করলে
আর কোনো বাহ্যিক আড়ম্বর লাগে না 
কন্ঠ মনন সময় আর বিশ্বাস 
এই নিয়ে আত্মাকে মুক্ত পাখির উড়ান করা যায় 
যেদিকেই যাই না কেন 
প্রাণবায়ুর মত ঘিরে থাকেন , থাকবে্ন আমৃত্যু -
লহ প্রণাম ।

1 মন্তব্য(গুলি):

lifelong বলেছেন...

Home truth! Beautifully presented.

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

About