ক্যালিডোস্কোপ

একটা পৃথিবীর মধ্যে
কি ভাবে অনেক টুকরো টুকরো পৃথিবী ঘুরতে থাকে।
আমার রবীন্দ্রনাথ ছোঁয়া ;বইপত্র ছড়ানো পৃথিবী,
তোমাদের ট্যাঙ্ক টপস পড়া ডিজাইনার পৃথিবী,
 পাঁচি মাতালদের ঝাঁঝালো গন্ধ আর চাট মাখা পৃথিবী,
বাচ্চাগুলোর খাতা বই আর পরীক্ষার টেনশান ভরা পৃথিবী
সব যে যার অক্ষ পথে ঘুরে চলে সারাদিন ভর।
দৈবাৎ কাছাকাছি এসে
একটা একটার সঙ্গে ওভার ল্যাপ করে যায়।
এ পৃথিবীর বাসিন্দা ও পৃথিবীকে বলে
হাই ,কেমন আছো ?”
ঝাঁকি দর্শনের পর আবার সবাই চলতে থাকি নিজের নিজের বৃত্তে।
কিন্তু অচেনা জীবনের নাগর দোলা
চেনা যায়না, চেনা যায়না।

বরাভয়

তোমাদের লেখালিখির জগত থেকে
সিডাকশনের হিসেবটা আমি ইচ্ছে করেই বাইরে রাখি
কত ডিগ্রী ঘাড় ঘোরালে লোকে কতটা ঘায়েল
বা ক ফোঁটা হিরের ঝিলিকে ক্লিভেজ পাশুপত অস্ত্র হয়ে লাশ ফেলে দেবে
সে খাতাটা বন্ধ করে রাখি।
যাও কবি।
ছিলা খুলে রেখেছি গাণ্ডীবে
কোন অস্ত্রে কোন পশু বধ হয়
উমা থেকে জগদ্ধাত্রী হয়ে উঠতে উঠতে
সব দুর্গা জেনে যায়।


0 মন্তব্য(গুলি):

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

About