রবীন্দ্রনাথ 

সহজিয়া বাউলের মতো নিবিষ্ট 
যে মনের ঘরে, সিদ্ধা সার্বভৌম
তার কাছে বড় আশা করে
অক্ষরমালার পাপড়ি গুনতে থাকি ,
বুঝি অসংগঠিত হবে বকপাঁতির উড়াল--
আমি কি দেখেছি ওদের ডানায় চড়ে
 
দিগবালিকার খেলা ফেলে দ্রুত ঘরে ফেরা
এসেছি কি কখনো আগে ভরা কোপাইয়ের তীরে
এসব সংশয় মনে জেগে উঠলে
 
কে তুমি ভিতর থেকে বাহিরে এসে ডাকো
 
আর নিকষ অবচেতনে জ্বলে ওঠে আলো !
দৃষ্টি মেলাতে পারিনে ওগো মনস্পতি,
কেবল তখনই দেখি তোমার গলার মালায়
কত ফুল আজ অবধি আমার চয়ন করা
কত চয়ন রয়ে গেছে আজও ।
আমার পিঠের দু'পাশে ডানা জুড়ে যায়
 
অমনি দুহাতে ধরে উড়িয়ে দাও আকাশে,
 
বলাকায় আঁকা ছবি পূর্ণতা পায়..
ওগো রাজা , কেবল পঞ্চ মহাজন মুগ্ধতা কণিকা আমি
আরও কত নীহারিকা অবগাহন রয়ে গেছে বাকি...।

0 মন্তব্য(গুলি):

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

About