অনুরোধ

লেখাটা দেবেন তো”?
মুখ আন্দাজে তার চশমার ফ্রেমখানা বড়
যে ছেলেটি লেখা চাইতে এলো
ঘেমো মুখ, হাতা রিফু জামা 
মাথাভরা চুল এলোমেলো ।

বারাসাত, কুঁদঘাট, কোথাকার পত্রিকা যেন
আগেও এসেছে
অনামী লেখিকার লেখা করতে বিখ্যাত 
যাবার আগেতে রোজ জল চেয়ে খায়
হাতের উল্টো পিঠে ঠোঁট মুছে মেঘ স্বরে বলে
গরমে তেষ্টা পায় এত”!

ছাপানো সংখ্যা দিদি ঠিক পৌঁছব
ঝোলা কাঁধে ফটাস ফটাস শব্দে সিঁড়ি নেমে যায়
ক্ষয়ে যাওয়া কুও-ভাদিস
সেইদিন দারুণ তাড়ায়।

শেষ বার এসেছিল
তাও প্রায় বেশ কিছুদিন হোল
কি ভেবে যে যাবার সময়
কাঁচে ঢাকা আকাশ দুচোখে একটুকরো সংশয় 
আচ্ছা, আমায় নিয়ে একটা গল্প লিখতে পারেন?,   
আসলে হতেই পারে আজ শেষ দিন এলাম, 
ধরুন অথবা নয়। 
সুইসাইড প্ল্যানটা তো ছিল
ওভারব্রিজেতে আমি
তবু ডাউনের লোকাল বড় লেট করে দিল।   
অণুগল্প হোক জীবনেরই মত, নেহাত নাহয় ছোটই 
হয়ত থাকবনা, আসব না আর, 
বা হয়ত বাঁচবই!

3 মন্তব্য(গুলি):

souvik raja dasgupta বলেছেন...

Darun

Bijoy ghose বলেছেন...

ভাল লাগলো।
অন্য নিষাদ-এ আপনার কবিতা অন্যমাত্রা অনুক।

Bijoy ghose বলেছেন...

ভাল লাগলো।
অন্য নিষাদ-এ আপনার কবিতা অন্যমাত্রা অনুক।

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

About