পোট্রেট

এই দিন, আর এই গয়ংগচ্ছ শূণ্যতা নিয়ে,
কিছুই আর বলার নেই আমার।
পাঠ প্রতিক্রিয়াগুলো সেকেলে আজও,
তেল চপচপে বিজ্ঞাপিত টি ভি,
আর প্রাগৈতিহাসিক বেতারে,
      ঋতু পরিবর্তনের অভিমানী সুর,
বড় ভাবিয়ে তুলেছে অমিতাভ।

তিরিশ বছর আগের বসন্ত বেহাগ,
আর আজকের ছায়াহীন বিকেল-
কোথায় অমিল, কিভাবে পিঠেপিঠ দাঁড়িয়ে কানা গলিতে,
আমাদের সন্তানদের সে বিষয়ে ধারনা আবছা।

ঘড়ি ঘুরছে, ঘোড়া দৌড়চ্ছে জকির চাবুকে,
অথচ  থমকে যাচ্ছে চাকা, সম্পর্ক বয়স।
আমাদের গাছপালা উপড়ে ফেলে,
চাঁদে বা মঙ্গলে জল খোঁজা,
            বিলাসবহুল এক টুপি যেন।

হে জীবন, হে আমার শিকারী চোখ,
দ্যাখো চক্রব্যুহর আশ্রয়ে,
কি আনন্দে কড়া নাড়ছি আমরা।

সোজাসাপটা

কুকুরটা কামড়ে দিয়ে চলে গেলেও,
পাল্টা  কামড় মারতে ওর পিছু নিইনি আমি।
আদতে আমার ভালোবাসার চোখেই -
                        নজরবন্দী ও এখন।
ওর প্রতিপদক্ষেপ, প্রতি মুহুর্তের,
পাগলামো, জিব ঝুলে গিয়ে লাল ঝরা,
এসবই এখন আমার মূল্যবান জীবন দর্শন।
আমি তলপেটে চোদ্দটা ইঞ্জেকশন নিতে নিতে,
চোখ বন্ধ করে ঠাকুর কে ডেকে বলি -
"ওকে ভালো রেখো ঠাকুর, সুস্থ রেখো"।
কারণ ওর বেঁচে থাকার উপর নির্ভর করছে,
আমার বেঁচেবর্তে থাকার চাবিকাঠি,
আমার ভবিষ্যতের বিলাস যাপন।

এভাবে জলাতঙ্ক হয়ে মরে যাওয়া কাম্য নয় আমার।

3 মন্তব্য(গুলি):

রুখসানা কাজল বলেছেন...

ভাল লাগল।

Sanjay Shome বলেছেন...

খুব ভালো লেখাটা ।

Sanjay Shome বলেছেন...

২য় টার কথা লিখেছি ।

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

About