যে শব্দস্রোতেও নিরুত্তাপ

ভাষাকে চিরদিন শব্দ ভেবে উপেক্ষা ক্যানভাসে লিখে ভুল
লোকালয় গৃহস্থালি সম্পর্ক শব্দহীন ভাসায় মেঘলা সুদূর
শব্দেরও থাকেনা দোষ বোকাকথা জেনে রাখো এক বেহাগ
সুর এসে মুহূর্তে আবেশ ছড়িয়ে হারায় চেতনার খানাখন্দ,বাঁক

ভাষা আর শব্দের আলোআঁধারি ধ্যান জন্মগত প্রার্থনা সঙ্গীত
রক্ত প্রবাহ থেকে প্রবাহে ওম ভরে দেয় জীবনেরও অতীত
যেখানে ছিপের সাথে মাছের সম্পর্কের ধারণায় থাকে ওজন
সেই ধুলোরঙের লোকালয় জানে দৃশ্যতই নেই কান্নার প্রযোজন

যদিও উচ্চারণ থাকে আর আছে নৈঃশব্দ্য কোথাও কোথাও
যেভাবে শব্দ চয়নের ভুল আছে সঙ্গে সমুচিত চেতনাও
শব্দ নক্ষত্রের রাত জাগা অভিমান ধুইয়ে কোথাও ঝলমল রোদ্দুর
ঋণ শেখায় নি বিলীন নতজানু উচ্চারণে অগ্নিশিখা রাখা জীবন যতদূর

ভাষার শস্যক্ষেত সবুজপত্র মাতৃত্বের মৃত্তিকার রক্তনদীর দান
জীবনের সমূহ অস্তিত্বের দাড়িঁপাল্লা নয় ঘাসফড়িং'র সমান
শব্দ উচ্চারণ ছুঁয়ে যাবেই তুমি শুধু ভাবো ভাষার রতন
আজ নয় অন্যদিন এক শ্রাবণের রাতে তোমারে পাঠাবো নিমন্ত্রণ

0 মন্তব্য(গুলি):

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

About