ক্লান্তিহীন নিঃসঙ্গতা

স্মৃতিকোষ থেকে মুছে যাচ্ছে আমার স্বপ্নের ইতিহাস,
সন্ধ্যার আবহ কিংবা রাতের স্নিগ্ধ রূপ।
বিকেল থেকেই বসে থাকি স্তব্ধ হয়ে-
কি ভাবে বিকেলটা গ্রাস করে সন্ধ্যাকে দেখবো বলে।
ক্লান্ত শরীর কখন যে অবসন্ন হয়ে পড়ে বুঝিনা,
হকচকিয়ে দেখি একটানে বিকলটা রাতকে
নিয়ে আসে চোখের পাতায়।
কেন এমন হয় বলতে পারো ?
আজ কুয়াশাভেদী সম্ভাবনারা ক্লান্ত,
খুঁজে বেড়ায় সূর্যরশ্মির তীক্ষ্মতা,
আমিতো প্রবালবিহীন সমুদ্রতটে হাজার ঢেউয়ের গর্জন,
তপ্ত জোয়ারের ফাঁদে,গোপন বালিয়াড়িতে
চির দিনের মতো ডুবিয়ে দিতে চাই কলঙ্কিত চাঁদকে।
অথচ, অথচ রাত শেষে দেখি জানালার পাশে মেঘহীন নীল আকাশ,
নারিকেল বাগান,নিঃসঙ্গ হিজল গাছ তেমনই আছে
যেমনটি,যেমনটি তুমি ছেড়ে গিয়েছিলে হাজার বছর আগে....

0 মন্তব্য(গুলি):

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

About