রঙ মেলানোর ছড়া

তুলি নিয়ে বসে আছি
নিয়ে আয় আলতা -
লালে লাল করে দিই
কান-মাথা-গালটা।
হলুদটা হাতে করে
এনেছিস সাথে কি?
তাড়াতাড়ি দেখি নে
গুলে নিয়ে গায়ে দি।
আকাশের কাছ থেকে
নীল রঙ আনলি?
পাড়তে গিয়েই শেষে
হাত-পাটা ভাঙলি!
হাতে আর পায়েতেই
দেব ওটা মাখিয়ে,
দেখ দেকি আর কিছু
রয়ে গেল বাকী এ?
সবুজটা নিয়ে আয়
গাছেদের থেকে চেয়ে -
নীলেদের মাঝে মাঝে
দেব সেটা ছড়িয়ে।
মাটিতে বাদামী ছিল
ঘাসেরই ফাঁকেতে -
যেথা খুশি লাগাবোই
মনেরই আশেতে।

আরে আরে বৃষ্টিটা
নেমে গেল একী রে!
সব রঙ একাকার
হবে যেতো দেখিরে!
রঙ মাখা কিম্ভুতে
তুলে নিই মাথাতেই
রঙ কিছু গলে নিতো
আছে সব ছাতাতেই।

প্রলাপ

বল দেখি বাঁচা কাকে বলে?
বল দেখি মরে যাওয়া কি?
বল দেখি রোদ্দুর মানে?
বল দেখি হরিণ কি জানে?
বল দেখি কাকে বলে চেনা?
কাকে আজ আলো বলে ডাকে?
ভালোবাসা বাসা যায় নাকি?
হৃদয় কোথায় পড়ে থাকে?
বল দেখি সোজা কাকে বলে?
কাকে ডাকে বাঁশি বলে আজও?
কে জানে প্রলাপ আছে নাকি?
কথাহীনতার মাঝখানে?
ভুলে যাওয়া শব্দকে চিনিস?
ডানা নিয়ে চলে গেল কবে?
একমুঠো গন্ধরা যাবে?
ওদের খুঁজতে এখনো?
জল থেকে রঙ নিয়ে এলি?
আমাকে লিখলি আকাশে?
গল্পদের বলে এসেছিস?
তারাদের ভাসাও ক্যানভাসে?
রামধনু কেঁদেছিল কবে?
চিঠি কেউ লেখেনিতো তাকে?

চিঠি কেউ লেখেনিতো তাকে।
কেউ তাকে মনে রাখেনি তো।
নাম ধরে কেউ ডাকেনি তো।
রাতভোর বৃষ্টির ফাঁকে।
সেই শুধু ভেসেছে প্রলাপে।
সেই শুধু ভেঙেছে প্রলাপে।


0 মন্তব্য(গুলি):

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

About