সুন্দরী লেক

তোমার রূপ কখন সবচেয়ে বেশী আকর্ষণীয়?
যখন অহনা লুটিয়ে পড়ে তোমার শিশিরমাখা
সবুজ গায়ে, নাকি লাল আগুনের গোলা
আস্তে আস্তে ডুবতে থাকে জলের ওপারে?

আমার তো দুটোই বেশ মোহময় লাগে।
সকালে যখন হাঁটি তোমার নরম ঘাসে পা ফেলে,
কৃষ্ণচূড়ার লাল - হলুদ ফুলগুলো আমার গায়ে
আলতো ছোঁয়া দিয়ে যায়।
কত পাখির কিচির – মিচির সারা মাথা জুড়ে,
ক্রমশ আলো ফোটে প্রতি কোনায়,
সমস্ত মানুষ নিঃশ্বাস নেয় বুক ভরে।

আর সেই রহস্যময়ী সন্ধ্যা; যখন নেমে আসে
অন্ধকার ঘিরে, বেশ ধীরে জল কালো করে।
মানুষগুলো ক্রমশ আবছা থেকে কালো হতে থাকে।
কোন দুটি মানুষ আবিষ্ট হয়ে খুব কাছাকাছি
তখন যমরাজ এসে উপস্থিত হয়
পুলিশের পোষাকে ঠিক ঘাড়ের কাছে।

অথবা আরও খানিক বাদে, যখন শান্ত আঁকা
কৃত্রিম আলোর রেখা হাল্কা মূর্তি তৈরি করে;
মানুষ, গাছ, ল্যাম্প পোষ্ট আর জলের ওপারের
লম্বা প্রানহীন দাঁড়িয়ে থাকা বাড়িগুলির।
তখনই ইতস্তত ঘুরে বেড়ানো মানুষগুলি হঠাৎই
হয়ে ওঠে গোয়েন্দা গল্পের রহস্য রোমাঞ্চ চরিত্র।

পুলিশ আসে অন্য ভুমিকায়।
কখনো পোশাক বদলে কল্পনাহীন চরিত্রে,
রহস্য সমাধানে, আবার কখনো সাহায্যের হাত বাড়িয়ে,
বিনিময়ে নিজেদের সুখ – শান্তি বৃদ্ধি করতে।

লেকের কালো জল কিন্তু সব জানে, সব বোঝে,
কিন্তু কিছু বলে না, শুধু বয়ে যায় তিরতির করে।
যুগ – যুগান্ত কালের হাত ধরে সাক্ষী হয়ে আছে
প্রথম জীবনের প্রেম, আলতো ছোঁয়া,
মাঝ বয়সের অভ্যস্থ জীবনের মাঝে হঠাৎ ভালোলাগা,
রহস্যময়ীদের আনাগোনা আর বয়স্কদের একাকৃত্যের মর্নি ওয়াক,
আর বাদামওয়ালাদের ধুলোমাখা পায়ে হাঁটা শুকনো জীবনের কথা ।।




0 মন্তব্য(গুলি):

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

About