টিপ টিপ বৃষ্টি


টিপ টিপ বৃষ্টি, সোঁদা সোঁদা গন্ধ,
আজ ভরা আশ্বিনে, ঘরে কেন বন্ধ?
হাতে ধরা যোগ আর বিয়োগের অঙ্ক
নামতা পড়তে গেলে মনেতে আতঙ্ক।
এক ছুটে মন্ডপে বাবা বাড়ী ফিরলে,
অনুমতি মিলবে না অঙ্ক না মিললে।
খোলা জানালার পাশে খোলা খাতা পেনসিল,
অঙ্কতে আর ধরা পড়ছে না গরমিল।
ঘন নীল আকাশেতে চাঁদ তারা ডাকছে,
হিমেল বাতাস চোখে জলছবি আঁকছে।
অঙ্কটা মিলছেনা, ঘর তাই বন্ধ,
টিপটিপ বৃষ্টিতে সোঁদা সোঁদা গন্ধ।

আকাশ পাতাল ভাবছে জগাই


আকাশ পাতাল ভাবছে জগাই, বুঝছে না'তো কিছু,
ঠিক যেখানে দুগ্গা ঠাকুর যাচ্ছে এলো চুলে,
বনের রাজা সিংহ কেন ঘুরছে পিছু পিছু,
দাঁত উঁচিয়ে, নখ দেখিয়ে, হলদে কেশর খুলে।

ভাবছে জগাই গণেশ কেন ইঁদুর নিলো সাথে,
ময়ূর কেন কাত্তিকেরই হঠাৎ বাহন হলো?
জল ছেড়ে
  হাঁস কিসের লোভে সরস্বতীর হাতে
বীণার তারে পালকগুলি করছে এলোমেলো?

লক্ষ্মী কেন পেঁচায় চ'ড়ে চুপটি বসে থাকে?
কৈলাশে কি জমলে বরফ দুগ্গা চুপি চুপি,
বাপের বাড়ী আসবে বলে বৈতরণীর বাঁকে,
লুকিয়ে রাখে গরম জামা, চাদর, মোজা, টুপি?

উত্তর না পেয়ে জগাই,লিখল শেষে চিঠি,
উড়ছে চিঠি শরৎ মেঘে, কাশের বনে বনে,
শিউলি যেন তারার পাশে হাসছে মিটিমিটি,
ভাসছে জগাই উথাল পাথাল ঢেউয়ের আলোড়নে।
ঢাকের কাঠি তাক্-কুড়াকুড় লাগছে ভারি মিঠি,
আর কতদিন,গুনছে জগাই আপন মনে মনে।



0 মন্তব্য(গুলি):

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

About