তারা চুরি 

রঙ মেখে সঙ সেজে বেপাড়ার গুপী
আকাশের তারা গোনে রাতে চুপি চুপি।
মাঝ রাতে মাথা ঘোরে বলে থুড়ি-থুড়ি
কিছু তারা মনে হয় হয়ে গেছে চুরি।
এই শুনে এ পাড়ার হারু খুড়ো বলে
সব তারা ভেসে থাকে পুকুরের জলে।
কিছু তারা মাঝ রাতে গিলে ফেলে মাছ
পার থেকে দেখেছিল ডুমুরের গাছ।
সেই গাছে বাসা করে ছিল টুনটুনি
খুড়ো বলেতার থেকে সবকিছু শুনি।
গুপী বলেমাছ গেলে আকাশের তারা
এমন পাগল নিয়ে যায় না তো পারা!’
অকারণে হারু খুড়ো কেন মারে গুল?
চাঁদ চুরি করে তারা এতে নেই ভুল।
খোকা বলে সূর্য-টা আরো বড় চোর
সব তারা উবে যায় যেই হয় ভোর।

ছাইয়া ছাইয়া ছাগল

ছাগল চুরি করে এক চোর
হাটের পথে যায়
ছাইয়া ছাইয়া বলে ছাগল
পেছন পেছন ধায়।
চোর ভাবল আজব কাণ্ড
কথা বলে এই ছাগল
এর পাল্লায় পড়লে বুঝি
হবই আমি পাগল।
ছাগল ছেড়ে ছুটল চোর
চোখ যেদিকে যায়
ছাইয়া ছাইয়া বলে ছাগল
তবুও পিছে ধায়।
ছাগল তো নয় জ্যান্ত ভূত
এই না ভেবে চোর
ঢুকল গিয়ে সোজা থানায়
তখন সবে ভোর।
চোর বললদারোগা-বাবু
দাওনা আমায় সাজা
নইলে কিন্তু ভূত আমাকে
চিবিয়ে খাবে তাজা
দারোগা বলেভূত নয়তো
দেখছি নধর ছাগল
হাসপাতালে গিয়ে সারাও
মাথার গণ্ডগোল
হঠাৎ করেছাইয়া ছাইয়া
বলল ছাগল আবার,
এমন আওয়াজ শুনেই
পিলে চমকে ওঠে সবার।
হাবিলদার সদানন্দের
বিজ্ঞানে খুব মন
ছাগল নিয়ে অনুসন্ধান
করল কিছুক্ষণ।
থানার সবাই কাঁপছে ভয়ে
প্রাণটা বুঝি যায়
সদানন্দ হেসে বলে
ছাগল সবিই খায়
দারোগা-বাবু রেগে বলেন
সে তো সবাই জানে
খাওয়ার সঙ্গে গান গাওয়ার
ব্যাখ্যা কর মানে
সদানন্দ বলেনস্যার
বিজ্ঞানেরই জয়
ভাঙা দাঁতে আটকে আছে
ছোট্ট মোবাইল টয়।
জিভের চাপে মোবাইল থেকে
হচ্ছে শুরু গান
থেকে থেকে সে গান শুনে
কাঁপছে সবার প্রাণ
দারোগা বলেনএটা বুঝতে
দু-তিন সেকেন্ড লাগে
ডরপুকদের শিক্ষা দিতে
বলিনি কিছু আগে

0 মন্তব্য(গুলি):

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

About