সেই ছেলেটি 
 


খেলাধুলো চোখ
সুবোধ বালক
অযথা অকাজ ।
ছেলেটি যে কাল
ছেড়ে ছিল হাল
ছাড়বেনা আজ ।   

তার আর এখন
ভুলো নয়  মন
সব হিসাব সই । 
ঠিক মনে রাখে
ফর্দের আঁকে
ডাল চাল  দই । 

ছেলেখেলা, ছুতো,  
ননী, ভোলা, ভুতো,
বেখবর মাঠ ।  
ঘুড়ি টুড়ি ভুলে
বাসে ঝুলে ঝুলে
যায় রাজারহাট ।  

ইস্কুলে যায় 
পর্‌সাদ পায়
মিডডে মিলের । 
ছুটছে সবাই 
ভয় নেই তাই
মায়ের কিলের । 

উড়ু উড়ু মন
ব্যস্ত ভীষণ  
স্পাইকইং চুল ।     
সরিষার তেল
গাছ পাকা বেল
সব নির্ভুল ।

ডোবা-খানা নাই
কই মাছ তাই
খোঁজেনা হাটে।  
নানান কাজের
সেই সওয়া-শের
এই তল্লাটে ।

ঘুলঘুলি মাথা
সেইকেলে কথা
সব্বী লোপাট । 
নাই থাক মন
হাতে মুঠো ফোন
ছেলে স্মার্ট  ।     






আনমনা

চিলেকোঠা 
চাঁদ ওঠা 
সবকিছু আছে ।
শুধু কিছু 
ঝুল-পিচু 
জানালার কাঁচে ।
আসবাবে
হাবভাবে 
জড়তা ছড়ানো ।
শোর গোল 
ডামাডোল
কিছু কম যেন ।
হয়ে ঢের 
পুতুলের 
ঘর বাড়ি দোলা।
ভরা ধুলো
দোর গুলো
হাট করে খোলা ।
চ্যাটা পিঁড়ি
কাঠ সিড়ি 
একা একা রাখা 
ফুলদান
সুনসান 
নিশ্চুপ আঁকা ।
রোজ তবু
হয় হবু 
সন্ধ্যে সকাল ।
উড়ে যায়
দূরহাওয়ায় 
ঝড়ো জঞ্জাল ।
জানলার
ওই পার 
লতা পাতা ঘাসে ।
ফুল ফোটে
জল ঝরে 
শিশিরের মাসে।
হাওয়া বয়
কথা কয় 
ফুল প্রজাপতি ।
নদীটার
সাথে পার 
ছোটে দ্রুত গতি ।

0 মন্তব্য(গুলি):

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

About