বেজায় ভীড় লেগে থাকে

মাঝ দুপুরে কুয়াশার সংগোপন বিস্তার,
ছানি পড়া চোখে পানিমগ্ন তামাটে চাদর
এক আকাশ ঘন মেঘের ছায়া ঘিরে
আজিজের চাঘরে ধুমায়িত হুল্লোড়;

গপ্পের বর্শা ছুঁড়ে মারে কেউ চাঁদে,
কেউ বেউচ্চ্যা চোরার কিসসা শোনায়- 
আততয়ী রাতে তরুণী ভার্যার জন্য
শালুক তুলতে গিয়ে ঢোঁড়ার ঘাড় চেপে ধরেছিল,

হাসপাতালের নালায় ভাসা শিশুর লাশ দাফন করে 
তার ঘুম কখন যে বাস্তুভিটা ছাড়া হয়েছিল
তা বোঝার আগে, যৈবতী দ্রাবিড়া শুতে গেছে
দফাদারের সাথে, আজ তার সারা গায়ে তুঁতে মাখা,

কারা এঁকে গ্যাছে আধ খাওয়া আপেলের ছবি
তার খোলা পিঠে খাপ-খোলা লোমের অনাচার
বিয়ানের পর নতজানু কবোষ্ণ স্তন সারারাত খোলা থাকে
কর্পোরেশনের কলের মত, ফোঁটা ফোঁটা দুগ্ধ পড়ে

ইদানিং কলতলায় নিতম্ব ও কলসীর বেজায় ভীড়.




1 মন্তব্য(গুলি):

মিজান ভূইয়া বলেছেন...

ওয়াও..…! দুর্দান্ত কবিতা..…।শুভ কামনা কবিকে..……মুগ্ধ, মুগ্ধ, মুগ্ধ..……!

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

About