ভাষা একটি তারাঅমনিবাস


জলের ভেতর
গোল আঁকা ভাষাটি

নিঃশ্বাসে ঢাকা আকাশ
হিরন্ময় মিছিলের
তবক জড়ানো
সোনালি ধানের গায়িকা্রা
বড়ো বড়ো চোখ
গান জাগায়
কথাও

কথার শুরুতে রক্ত
রক্তের ভেতরে আরও দু একটি ছত্র
লিখি ঠিকানা
লিখে রাখি
আমার নাম বনপলাশের বর্ণমালা



ছিন্নমূল শরীর কালো
শবর কিনু ফুলমণি
রোগা চেহারার সেমিজ জ্বালানো  

নিজস্ব খাঁচায় অ আ
রুগ্ন বাতাসের বাসি হাওয়া
উজানের ভাষাটি চিরচেনা

পাতলা মোমের এক ম
রোজ ওদের এ পার ও পার
এ নদী ও দ্বীপ
এ সবুজ ও মশালে রিমঝিম

ওদের শতাব্দী লাল থরথর করে
সন্ধে নামলে
ম তে মঞ্জুরী নামের এক হাসি
সুবিমল জ্বরে কাঁপতে কাঁপতে
তাদের অন্ধকার শরীর

মুক্তো সেঁচে


ভাষা হয়েছি বলেই দেখেছি মানুষগোলাপ
ভাষা হয়েছি বলে খুব উঁচু ভোরবেলার
তেতলা বাগান জেনেছি ভাষা মানে
চিরদিনের ভাইবোন , খুনসুটি
ভাবাই যায়না এতদূর দিঘীসমেত
আস্তগোটা একটা স্নান, আঁকিবুকি

একুশ বর্গ মাইল জুড়ে সে  
সেই বহু অপেক্ষার বহু আঁচলের
ভাষা পেয়েছি তুমুল
অহঙ্কারে তাই

ঋষি থেকে উপচে পড়ছে ধ্যান  
সূর্য থেকে উপচে পড়ছে দুধ
দুধের মানচিত্র ফিনকি দিয়ে
দুধ থেকে ঝরছে স্বয়ং ঈশ্বর
আল্লাহ জেসাসের ফেনা
ভাষা মানে রক্তপবিত্র
মায়ের লাল-সাদা জড়োয়া
কান্নার গহনা  

ভাষা হয়েছি বলে সাদা হরফ
অক্ষরসম্ভবা মাঠ
শিশুশ্রেণী কলকল
দুষ্টু পা শান্ত স্কুলবাড়ি
ওদের ডানায় পালক
ওদের চোখে ভাষার পলক
সমান আয়না

ভাষা হয়েছি বলেই
আমরা এক ফোটা নক্ষত্র
এক হাজার ফুলের খিদে
এক কোটি তারার জলসত্র
এক বৃক্ষগাছ
নৌকো পাখিদের দুনিয়াদারি
কিংবদন্তীর কথাআত্ম  

ভাষা পেয়েছি বলে
এই পৃথিবী আমাদের ছাদ একমাত্র  
ধন আর ফসলের প্রিয় ফসফরাস
চাঁদের লণ্ঠনময় আমাদের হীরক
দ্যুতি
ভাষা হয়েছি বলেই লাটিমের গালিচায়
সারারাত মসৃণ ঘূম পাখালির জ্যোৎস্না
ঈশ্বরের আতপ , ঊষার তাপ ,
গোপন কুহু
নিভৃতি








3 মন্তব্য(গুলি):

PALASH KUMAR Pal বলেছেন...

ভাষা হয়েছি বলেই
খুশি জীবনমলাট...

Abul Bashar Mohammed Moniruddin বলেছেন...

অসাধারণ

Rohan Nambiar বলেছেন...

দারুন দিদি।।।
ভালোবাসা নিও

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

About