তমোগুণী

দুয়ার ধরে দাঁড়িয়েছিলে,
অন্ধকারের মুখোমুখি।
অস্ফুটে তাও শুনতে পেলাম-
বললে শুধু তমোগুণী

আমার কাছে কঠোর ছায়া-
রেখে গেল আলগা হিসেব।
হেমন্তদিন, ঝরছে পাতা-
অস্ত্র ঢাকে হাজার খুনের।

বন্ধ করে পাল্লা যত-
ফিরে গেলো অন্ধ ছায়া।
লতা-পাতা জড়িয়ে উঠে-
আলো খোঁজে শতেক কোণে।

শ্যাওলা অনেক ধুয়েই গেছে-
সময় জানে যাবে আরও।
অরণ্যপথ আমার সাথেই-
বেঁচে থাকার শর্ত গোনে।

কাজের ওজর- আপত্তিরা-
বাঁধতে থাকে চিরকালই।
মাটির নিচের মায়ানগর-
ধ্বংস হল লক্ষ ঘুণে।

সভ্যতার ওই দাঁতে নখে-
খিঁচিয়ে বল, -তমোগুণী!
আমিও জড়ো করছি সমিধ-
বাঁধন ছিঁড়ি এই আগুনে।  

0 মন্তব্য(গুলি):

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

About