সেকুলার

আমরা সেকুলার
তাই ধর্ষিতা মেয়েটির নামের আগে লিখে দিই দলিত
কট্টর রাজনীতিবিদ্‌ ছাত্রটিরও পরিচয় হয় সংখ্যালঘু।
একে একে খুন জখম রাহাজানি সবাই হেয়; শোষিত,
সুতরাং করতেই পারে দোষ সমাজের।

ওদের অধিকার আছে পশু হওয়ার। খামারে পালিত
হয়ে খড় খাওয়ার অধিকারও আছে। তুমিও উহাদের
তেল দাও, উহারা তোমাদের দুগ্ধ দিবে। সে দুধ খাও
বড় হয়ে হও কমপ্ল্যান বয়। হাতে তুলে নাও ডান্ডা,
আর ঢুকিয়ে দাও মেয়েটির যৌনদেশে।

জেনে রেখো
তবে পরীক্ষা প্রার্থনীয়। তুলতুলে আঙুলে মেপে দেখ,
ডিসিশন নেওয়ার আগে,স্তনদুটি দলিত না উচ্চবর্ণ।

সবুজ

কে বলল আমি ব্যর্থ সুপর্ণা?
এই যে মেঘনীল আকাশ, কিংবা ধর এই সবুজ উপত্যকা পেরিয়েও সবুজ
যেখানে চোখ বা সকালের আলোছায়া সেও কি কখনো প্লেটোনিক প্রেমে প্রকাশ পায় না?
সবই কি মাপতে হবেকমিউনিজম দিয়ে?

আমার তো বেশ লাগে
তোমাদের ওই শ্যামলা পাহাড়টাকে দেবতা ভাবতে। নুব্জ হয়ে যেতে ওদের সামনে,
ছোট হয়ে ঘাড় বেঁকিয়ে আস্তিন গুঁজে দিতে ঘাসের আবহে।
তারপর যদি শিশিরের আশকারায় ভিজি আমি

আমার তো বেশ লাগে সুপর্ণা নামের নদীটি,
খলবল বয়ে চলা কাকচোখা যদি ওকে প্রেমিকা ভাবতে পারি।
আর যেসব বোল্ডারগুলোওখানে শ্যাওলা লেগে প্রবীণ
ওরা স্রেফ আমার, আমার কলঙ্ক।

তুমি কলরবে থাক বাড় চশমা এঁটে নাও ভুরুর মধ্যিখানে
আদ্যন্ত ম্যাথেমেটিক্স বা ফিজিক্স আওড়াও যা প্রাণে চায়
আমি পিথাগোরাসের উপপাদ্যের মত
সিঁড়ি ভেঙে ভেঙে
সিঁড়ি ভেঙে ভেঙে
চ্যালেঞ্জ ছুঁড়ে দিচ্ছি উপরওলাকে

একবার এসে দাঁড়াও সবুজ এই পাহাড় নদী উপত্যকার বুকে
আর প্রমাণ কর তুমিই ঈশ্বর।  

0 মন্তব্য(গুলি):

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

About