হাসি 

একটা হাসির শরীরে ছেঁড়া কম্বল জড়িয়ে থাকে। সে রোজ স্টেশনের এককোণে রাতের বেলা শুয়ে কাটায় । ভোর না হতেই চায়ের ভাঁড়ে চা খাওয়া চাই তার । সে জানে এই হাসিটির পেছনে লুকিয়ে আছে ঘোরতর বিস্ময়।যারা দেখে তাদের কারো চোখে সন্দেহ
।অনেকেই না দেখার ভাণ করে।দেখে দেখে যারা অভ্যস্ত তারা পাশ কাটাবার সহজ উপায় জানে।হঠাত যদি নজরে নাকারো আসে হাত দুটি মেলে এক চিলতে হাসি ফুটিয়ে
 
সামনে দাঁড়ায়,বলে,দুটি টাকায় আজকাল কিছু হয়।দশ টাকা না পেলে স্বয়ং ঈশ্বরও খুশি
হন না।দেখবি হাসির ভেতরে একরাশ বিষণ্ণতা ছড়িয়ে আছে।ধর,মুগ্ধতার ভাণ নিয়ে
 
তোর বারান্দায় যে ফুল ফুটে থাকে কিম্বা তোর রেলিঙে এক ফোঁটা ভোরের রোদ কতটা
 
 ভিটামিন ডি দেবে,শীতের তারে মেলা কতটা জামা শুকাবার উপহার দেবে ধর ঘরভর্তি
প্রয়োজনের অতিরিক্ত আসবাব,পরিপাটি বিছানা চাদর উপবিষ্ট চেয়ার টেবিলে হিসেবনিকেশ কবিতারখাতা সারা ঘর গান ম ম তবু এক অসুখ এলজোমালে রাত্রির ঘুম
 
নিঃসঙ্গ নয় একা তবু ক্লান্তিকর দাঁড়িয়ে থাকা চলাচল সময়ে সময়ে চাদর পাল্টানোর।


0 মন্তব্য(গুলি):

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

About