নির্জল চোখে নদীর ভিতরে

যদিও বঞ্চিত হবার বেদনা অন্যরকম।
মনের কলসীতে আকুল তৃষ্ণার আলিঙ্গন
রক্তের তীরে বসে চেয়ে থাকে,কখনো
গাঢ় সুরে নাম ধরে ডাক দেয় দিনমান,
এতো নীরবতা কতো রঙ্গে সম্মুখেে এসে দাঁড়াবে
বলবে,আরো কিছুদিন দুয়ার খোলা রাখো।

চোখের পাশে ঘুমের আনাগোনা,চোখের দুয়ার
বন্ধ করে ভাবছি কোন ঘাটে ভিড়বে আমার
তাড়নার নাও,মনের ভেতর আদরের পৈঠায় বসে
আছে স্মৃতির একখন্ড কূয়াশা,আমি নিদ্রার মিথ্যা
ভান করে থাকি তবু খুব পাশে দাঁড়িয়ে তোমার
কন্ঠস্বর ওয়াহিদ জেগে আছো?

বাবা বলতেন রাত জেঁগে থাকিসনা
রাতে অন্যরকম পথিক মনার দুয়ারে এসে
কড়া নাড়বে,আমি দিনের শরীরের মতো আজও
রাতকে কাছে রখছি,গন্ধভরা ঘাসের মতো বুকে
জড়িয়ে আগলে রাখি বাবার সেই কন্ঠস্বর আর
চেয়ে দেখি নিজ বালকের বিষন্ন বিদায় মূহুর্ত।

আহা কী কষ্টের ভিজে গেছে অমন চোখের বিদায়
যেখানে এসে লুটিয়ে পড়ে বিষাদের মারফতি টান,
আমি অবিকল চরের পাখির মতো নড়ে ওঠি
স্র্রোতের তোড়ে ভাঙ্গা পালকের দিকে তাকাই,
দুঃখময় আত্মার বিলাপ স্বজনদের মায়া ভেবে
শরীরে মাখি,রাতের চাঁদ নরম হয়ে মাথায় হাত রাখে।






0 মন্তব্য(গুলি):

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

About