শিকড় প্রতিশোধ

অনেকদিন হাভেলি অন্ধ বাড়ীতে  হানা পড়েনি৷
রোজ মিটমিট আগুন জ্বলে ৷ সে অন্ধকারে
কেউ কেউ ভাবে
ওখানে ভুত থাকে ৷ কঙ্কাল নড়াচড়া করে ৷ ভুতরে বাড়ী
নাম : হাভেলি নীলকুঠি

সেখানে নীলাঞ্জনার বাস  অতীত
ছায়া আলো আলো ছায়া
ফটকে রৌদ্র ঝিলমিলে সবুজ বকুল গাছ
বনমালী দারোয়ান শাসনে সীমিত গঠনে রাখা 
আহা শুধু  ছোট বকুল ফুলের গাছ ৷
সেই বকুল ফুলের মালা হাতে  নীলকুমার এসে রোজ
নীলাঞ্জনার খোঁপায় গুঁজে দেয়া নীল রাত
এখন আর নেই ৷

এখন মালিকহীন ভুতরে বাড়ী
ঘরগুলোতে আগুনখোরের আড্ডা ৷
কলকে হাতে 
চিৎকার নেশা মতের অমিল ৷ বিপ্লব
দীপান্তর ফাঁসি কাঠ পেরিয়ে আসা সব কঙ্কাল ৷
এখন কেউ নেই সেখানে৷

বনমালী শাসনে সীমিত গঠনে রাখা 
আহা শুধু  ছোট বকুল ফুলের গাছ . এখন নিষ্ঠুর
দিনের রৌদ্রতাপে বকুল গাছের শিকড় 
উঠোন দেয়াল ঝুল বারান্দা ছাদ
ফাটিয়ে জেগে থাকে সারা রাত প্রতিশোধ নেবার
নীলাঞ্জনার খোঁপায় ডাল বাড়িয়ে ঐ তো একটু বাতাস নাড়িয়ে
নিজের সবুজ পাতার পরশে ফুল ছড়িয়ে না দিতে পারার
অন্ধ বকুল প্রতিশোধ ৷


0 মন্তব্য(গুলি):

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

About