তারপর

সত্যি বলছি -
আমাদের কোন 'তারপর' ছিলো না !

রাস্তাটা ছিলো ভীষণ রকমের একলা ।
আলো-আঁধারীর গল্প খেলেনি
দুপাশের বড় বড় গাছের পাতায়,
ফিসফিসানির শব্দ ছিলো -
ছিলো না কোন ইঙ্গিত !
রাস্তা বয়ে চলছিল - যেমন সময় যায় ....

আমার একপৃষ্ঠার জীবন নিয়ে
যেদিন পা ফেলেছি
সে রাস্তার নয়নজুলিতে -
গাছেদের গায়ে গায়ে ঘষা লেগে
ছিটকে পড়লো কিছু ছাল-বাকল !
পথের পদ-বিশ্লেষনে
দরকার পড়লো কিছু শুখা পাতার !
বাতাসের হঠাৎ ঘুরপাকে
ডালে ডালে বয়ে গেল ধুলোট বর্ণের বার্তা ।
- অথচ আমি একপা একপা করে নামছি
শান্তি-সত্ত্বায়নের আশায় -
শ্রাবণকে বুকে জড়িয়ে ।

রাস্তা শুধু চোখ মেলে দেখেছিলো ।
বুঝেছিলো - ও জলের ক্ষমতা ,
আত্মিকরণের একাগ্ৰতা ।
পথিক যদি পা না ফেলে
থেকে যায় পাশটিতে - কি বলে ডাকবে তাকে !

এখন দিগন্তকে ডাক দিয়ে রাস্তার গল্পে শুধু দিক-মোড় ।

নয়নজুলির কালো জলে চাঁদের উঁকিঝুঁকি ।

মাথার উপর কাকচক্ষুর শীতলতা
আর সাদা অস্থির পবিত্রতাকে
সাক্ষী রেখে বলছি -
আমাদের কোন 'তারপর' ছিলো না ....
.
.


0 মন্তব্য(গুলি):

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

About