নেশাতুর
 

কিছু মুহূর্তের ঠোঁটে নেশা লেগে থাকে,
প্রাত্যহিকতা এসে থেমে যায় হঠাৎ, অকস্মাৎ..

ডুবো পাথরে ধাক্কা খেয়ে জাহাজ যেমন
জলসিঁড়ি বেয়ে অতলে বাসা বাঁধে,
তোমায় ছুঁয়ে দেখা বোধগুলো
অচ্ছুৎ হয় ফ্রেমবন্দী মুহূর্তগুলোয়,
অবচেতনার দীঘিতে স্বেচ্ছায় ডুব দেয়
ওপারে ভেসে ওঠে কিনা দেখা হয় নি আজও..

প্রত্যাশার দূরবীণটা ক্ষয়ে যায় রোজ,
ধূ ধূ বালুচরে ছুঁড়েই দেব একদিন
অভিমানী সরিসৃপ হয়ে জন্মাবে যুগান্তরে,
জঙ্গল ভেঙে খোদাই করবে তোমার নাম..

আবেগ ভুলে জোৎস্নায় হেঁটে যাব আমি,
ডালপালা বিস্তৃত পরিসরে
পরিচয় হাতড়াবোসম্ভ্রমের গুঁড়ো মাখবো দেহ জুড়ে..

ঘোর লাগা মুহূর্তগুলো এভাবেই
প্রাত্যহিকতা ছাপিয়ে গল্প লিখে যায়
তুমি-আমি শোনার আশায় বসে থাকি,

সেই অবকাশ ফুঁড়ে গুপ্ত কিছু বিষাদ
ডানা মেলতে চায় নিজস্ব নিয়মে মেনে,
ছাঁটতে গেলেই দমকা হওয়া হয়ে ভাসে..
আমি পথ ভুলে ব্যর্থ ফিরে আসি,
প্রতিদিন প্রতিবার, অবিরাম..
 

0 মন্তব্য(গুলি):

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

About