‘এই কৃষ্ণপ্রহরই কবিতার মুহূর্ত’ এটি গত  ১লা এপ্রিলের একটি দৈনিক সংবাদপত্রে প্রবীণ সাহিত্যিক দেবেশ রায়ের উত্তর সম্পাদকীয় নিবন্ধের শিরোনাম । অন্যনিষাদের এই সংখ্যা প্রথাগত সম্পাদকীয়তে কিছু না লিখে ঐ নিবন্ধের কিছু সারাংশ তুলে দিলাম অন্যনিষাদের কবিতাপ্রেমিদের জন্য । একটি অক্ষরও আমার নিজের লেখা নয় পুরোটাই উদ্ধৃতি । এবং জরুরিও বটে ।

“মন্দাক্রান্তা নিশ্চয়ই আত্মরক্ষার প্রয়োজনে লালবাজারে জাননি । এক পত্রিকায় দেখলাম। মুখ্যমন্ত্রী নিশ্চয়ই মন্দাক্রান্তার বেলাতেও তাঁকে রক্ষার ব্যবস্থা করবেন ।
ভুল, ভুল, ভুল । কবির কোন আত্মরক্ষা নেই, এক কবিতা ছাড়া । তাঁর নিজের কবিতা ও অন্য সব কবির কবিতাই তাঁর আত্মরক্ষার ব্যুহ । কবি মানেই অভিমন্যু – তিনি চক্রব্যুহ থেকে পালাবার পথ জেন্র সাদা কাগজে কালি লেখেন না । যিনি তা করেন তিনি আর কবি থাকেন না, তিনি হয়ে যান অক্ষরলেখক, পুঁথিকার মাত্র । .....

এই তো সেই সময় যখন কবি হয়ে ওঠেন গান্ধারী, বা গান্ধারীই হয়ে ওঠেন কবি ।
কিন্তু এই সুসময় বেশি দিন থাকবে না ।

আমরা এখনও সেই সুসময়ে আছি, যখন উলঙ্গরাজার কবি নীরেন্দ্রনাথ কবিতা লিখছেন, নব্বই পেরনো মনীন্দ্র গুপ্ত কবিতা লিখছেন, শঙ্খ ঘোষ ন্যুব্জ শরীর নিয়েও দাঁড়িয়ে আছেন অর্জুনের মত অব্যর্থ লক্ষ্যে ।

কবির কোন আড়াল নেই, কবির কোন আত্মরক্ষা নেই । ......
এ তো ব্যক্তিগত প্রহরার সময় নয় । এ তো সমবেত কবিতারচনার সময় । কবিতার চাইতে দৃঢ়তর প্রতিরক্ষা সমাজের আর কী আছে ?
কবিতার পক্ষে এই তো সর্বোত্তম সময়” ।

দুই

আর একটি কথা । প্রতিবারের মত এবারও অন্যনিষাদের ‘কবিপ্রণাম’ বিশেষ সংখ্যা প্রকাশিত হবে ২৫শে বৈশাখ (৯ই মে ২০১৭), কবির জন্মদিনে । এই সংখ্যার জন্য লেখা আহ্বান করছি । লেখা পাঠাবেন অন্যনিষাদের ইমেইল ঠিকানায় anyonishadgalpo@gmail.com এবং অবশ্যই ৩০ এপ্রিল তারিখের মধ্যে ।


0 মন্তব্য(গুলি):

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

About