অশনি সংকেত

মেঘ করিল
অশনি সংকেত দেখা দিতেছে
আমি কি করিয়া স্থির থাকিব  ?
চরাচরে আমার আশ্রয় নাই
দিগন্তে আমার স্নেহচ্ছায়া নাই
মর্মবিদারক একটি মাটির হৃদয় লইয়া
এখানে আমি অতিথি আসিয়াছি

ফাগুন মাসে কোকিলের ডাক শুনিয়া
ঝরনার নূপুর শুনিয়া
আমার আসক্তি বাড়িল
বলিয়া এখানে থামিয়াছি
বড়ো ইচ্ছা হইল তাহাদের সুমধুর বাজনা শুনিয়া যাইব

আকাশ এমন শাসন করিবার কে  ?
তাহার অশনি আছে বলিয়াই কি
এমন সংকেত দিতেছে  ?

আমি প্রেমে পড়িয়াছি
বলিয়াই কি তাহার অন্ধকার সমাজ এমন গর্জন করিতেছে ?

আমি আজও প্রহর গুনিতেছি নিরুত্তর ঈশ্বরের কাছে

  ধ্বংস
               
ধ্বংস দেখিতে আসিয়াছি
একে একে সব ধ্বংস হইতেছে

গোরুগুলি সাঁতার কাটিতেছে
হাতিগুলি শূড় উঁচাইয়া রহিয়াছে
গর্ধবগুলি চিৎকার করিতেছে
অন্যান্য বহু জন্তুর সমাবেশ
কী প্রকারে বর্ণনা করিব   ?

প্রলয়ের জোয়ার বাড়িতেছে
তরণি নাই, স্টিমার নাই
কোথাও একখণ্ড ভূমি দেখিতেছি না
ইহার ইতিহাসই বা কে রচনা করিবে ?

দু একটি পানকৌড়ি দিব্যি সুখে ডুব মারিতেছে
আহা কী মৎস্যই না উঠিতেছে !
আমরা দয়াবান বিজ্ঞলোক
পুরাতন একটি ধারণার বৃক্ষে উঠিয়াছি
আমাদের বিশ্বাস এই বৃক্ষ অটল রহিবে

এসব দেখিয়া সংকট হাঃ হাঃ হাসিতেছে
এসময় কাহার হাসি ভালো লাগে! 

0 মন্তব্য(গুলি):

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

About