কসায়-কাল

আমাদের কাটাকুটি ঘর
সামনে উঠোনজোড়া একঘেয়ে গাছ
সেখানে ফল নেই, ফুল নেই-- সে শুধুই গাছ
দু ঘরের চালে রাখে প্রশস্ত প্রশাখা

অম্বুজা সিমেন্ট দিয়ে তৈরী পাঁচিলে
দেখো, ঠিক ঘুণ ধরে যাবে, একদিন

ব্রাহ্মণ নই বলে বেদ পাঠ করিনি কখনও
তবু বুঝি আমাদের কষায়-কাল
শুরু হলো সবে


বৃষ্টির রূপকথা

দু'চারটে খই, গন্ডুষ জল, ছেঁড়া পাপড়ি
রেখে দিতে পার--যদিও সে প্রয়োজনও গুরুত্বে কম--
অন্তিম ইচ্ছাপত্র কতবার বদল করেছি রাত জেগে
জেনেছে তা এঘরের বাতি ও বাতাস...
দিয়ে যাব যন্ত্রে তৈরি বৃষ্টি, নকল ঝরণা
শার্সি ভাঙার স্পর্ধা দেখানো অনুচিত ভেবে
ঘোড়াগুলি চলে যাবে স্টেবল-আশ্রমে

ইচ্ছেগুলি এখনও মরেনি, খুব চায়
ভিজবে আবার অঝোর ঝরণে-- নিরাপদ ঘর
খোঁজে নি সেভাবে--জীর্ণ বাড়ি কতবার কপাট খুলেছে...

কত ফুল দানা থেকে শস্য হয়ে ওঠে,
চলে যায় মালিকের গোপন গুদামে--

বিনিময় প্রথার রেয়াৎ করি না আর,
ব্রাহ্মমুহূর্তের আগে
একরাত বৃষ্টি দিয়ে যাব, কুশলে থাকার


0 মন্তব্য(গুলি):

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

About