গাছ লতার গল্প

একটা গাছ
গাছটা যখন ধ্যানে মগ্ন
একটা লতা এসে গাছটার মন, শরীর, কবিতা, কল্পনা
সব দখল করে নেয়
কিছুই বাকী রাখে না ;
হাসে, অনর্গল কথা বলে
খুনসুটি আলসেমি আবার খুনসুটি চলে
ওদের সঙ্গম যেন ভুজঙ্গের বিভঙ্গ ;
তৃপ্তির রমন শেষে লতা ওর দুচোখ বন্ধ রাখলে
গাছ আবদার করে বলে, চোখ খোল,একবার তাকাও আমার দিকে
চার চোখের দৃষ্টি মেলে, অজস্র প্রজাপতি উড়ে উড়ে
তারাদের মাঝে কবিতার লিফলেট বিলি করে,
লতা গাছের বুকে শুয়ে থাকে।
তারপরে ?
     যেমন হয়
কালো মেঘ দশাননের মতো পদ্যের ছন্দকে ঢেকে ফেলে,
দমবন্ধ করা গুমোট
দুজনেই বৃষ্টি চায়-
বৃষ্টি আর আসে না ;
গাছ আর লতার মুখ বদলে যায়
প্রেমিক প্রেমিকা থেকে দুটো শালিক ;
লতা চলে যায়, আসেনা
আর আসে না,
গাছ আবার ধ্যানে বসে,
লতা আসে না
শুধু ঋতুরা আসে যায়
স্মৃতির খাতায় ধুলো জমে
গাছ গাছের কাজ করে,
ধ্যান করে না ।
গাছ লতার গল্পের এখানেই শেষ?
নাহ!আর একটু বাকী,
হঠাৎ একদিন লতা ফিরে আসে
এক দুপুরে ওরা নিঃশেষ হয় জ্বলে পুড়ে
এবার গাছ লতাকে ছাড়তে চায় না
এক অভিমানী অস্থির কামুক পুরুষ
অধিকারের রজ্জুতে বাঁধতে যায় ,
লতা বদলে যায়
যে ওষ্ঠে চুম্বন বন ময়ূরী হত
সেখানে কাল ফণীর ছোবল,
গাছ যন্ত্রণায় নীল হয়ে যায়
ডালপালা ঝাপটে লতাকে বুক থেকে ফেলে দেয়।
আমার কলম আজ দূত-
মাধবীলতা, তুমি আর এসো না,
তোমার গাছটা মরে গেছে।
 


1 মন্তব্য(গুলি):

লক্ষ্মী কান্ত বর্মণ বলেছেন...

Very Nice

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

About