বেলা শেষে

বেলা শেষের নরম রোদ যখন পড়েছে বারান্দায় রাখা
আচারের শিশি ডিঙিয়ে ঘরের মেঝেতে
তখনই জানি, সূর্য অস্থ যাবে খানিক বাদে।
গায়ের শীত চাদর টেনে নিলাম কান ঢেকে
বন্ধ চোখে আমারও মনে পড়ল পুরনো হয়ে যাওয়া
সব শীত, যা রেখে গেছে অনেক ভালোলাগার
ওলট পালট বিছানার উষ্ণতায় আর পায়ে।

এক ঝাঁক সবুজ পাখি নেচে নেচে উড়ে গেল দূরে
সন্ধ্যে আরও গাঢ় হলে প্যাঁচারা আসবে কাছে
ওরা দুজনে মুখোমুখি বসে ওই তেঁতুল গাছের ডালে।
কত কথাই না বলে হেসে হেসে, ঘাড় ঘষে।
একসময় অনেক রাত হবে, চাঁদ উঠবে মাঝ আকাশে
পরীরা লুটোপুটি খাবে ফুলে ফুলে আর ঘাসে।
আমি তাকিয়ে দেখব দূরে, অনেক দূরে।

আর কটা শীত আসবে আমার জীবনে
নাকি এটিই শেষ শীতের রেখা টেনে যাবে গালে!
সকালের সূর্য দেখব কি কাল নতুন চোখ খুলে
নাকি এ রাতই শুষে নেবে সূর্যের সকল আভা!
ভয়ে ভয়ে চোখ খুলে তাকাই আর একবার
হ্যাঁ, এখনো আছি, আর সবকিছু আমার।

কত যুগ ঘুরে বেড়াই একা এই ঘরে
ভাবি তুমি আসবে, ঠিকই আসবে এপারে
কিন্তু আজও এলে না সেভাবে।
এখন আমারও যাওয়ার সময় হয়েছে তবে,
তাহলে কি ওপারেই দেখা হবে, আবার নতুন করে?
পিছনে থাকবে পড়ে সমস্ত স্মৃতি আর ভালোলাগা
শুধু আমি চলব সামনে, তোমার খুব কাছে।
এবারে হয়তো বুঝব চোখ এই আশা নিয়ে
বেলা শেষে মিলন হবে সূর্যের ওপারে।।





0 মন্তব্য(গুলি):

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

About