সূর্যমুখী দিনের আশায়

চারদিকে এত কেন সারিবদ্ধ লাশের মিছিল
তবে কি রক্ত দিয়ে লেখা হবে ইতিহাস ফের,
মানুষে মানুষে আজ এত কেন বোধের অমিল
তাহলে কি ভুলে ভরা অবয়ব সব মানুষের!!

অবশ্য ইতিহাস বলে কিছু পশুও ঘুমায়
মানুষের রক্ত-মাংস-অস্থিজাত শরীরের ঘরে
নখ-দাঁত দিয়ে তারা ছিঁড়ে খায় তোমায় আমায়
পাশবিক পৃথিবীতে মনুষ্যত্ব তিলে তিলে মরে।

ধর্মও এখন দেখি পণ্য হয় -হাতে সে-হাতে
-হাটে -হাটে তার নয়া নয়া নিপুণ বেসাতি
অর্বাচীন পশু কিছু রক্তফাগনৃত্য নিয়ে মাতে
খুনে ধর্ষণে তারা রেখে যায় নয়া কেরামতি।

তাদেরও অসীম ভাগ্যে জোটে কিছু পৃষ্ঠপোষক
অন্ধকার জগতের উপমাও জুটে যায় কিছু
কিছু অন্ধ জন্ম নেয় সাথে নিয়ে সুন্দর দু-চোখ
অন্ধকার দিনগুলো ফিরে আসে তার পিছু-পিছু।

প্রতিবাদী মানুষের রক্ত চাটে ঊষর জমিন
প্রতিবাদী কণ্ঠগুলো মুচড়ে দিতে চায় কেউ কেউ
তবে কি ফুরিয়ে এল শুভ বোধে উদ্ভাসিত দিন
তবে কি শুকিয়ে এল সাগরের বন্ধহীন ঢেউ!!

হে মানুষ, শক্ত হও, শক্ত করে রাখ হাতে হাত
শৃঙ্খল ছাড়া তো আর হারাবার কোনোকিছু নেই
অবিমিশ্র চিন্তনের বোধ কর চির উৎখাত
রাত্রি শেষে একদিন সূর্যমুখী ঠিক হাসবেই।

1 মন্তব্য(গুলি):

Sofil Ahamad বলেছেন...

'শব্দ শ্রমিক' এর কথা মনে পড়ে গেল। রুদ্র মুহম্মদ শহীদুল্লাহ। শঙ্কর জি ভাল লিখেছেন।

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

About