বিকাশ চন্দ

 আগামী আগুন স্তবে


নিশিপদ্মের রঙ চেনে না অমাবস্যা কি পূর্ণিমা রাত

অবিকল শহুরে ম্যাজিক রাত নামে পদ্মদিঘির জলে,

সমস্ত অচেনা মুখ খুঁজে ফেরে তাদের দ্বিজাত স্বরূপ

কত না গাছের শরীর কুঁড়িময় মাতৃত্বের জঠরগত ভ্রূণ। 

 

ঘরে ফেরা সকল পাখিদের সুর শিস গান বাতাস চেনে

দেখেছে ঘিরে আছে রাজকীয় প্রাসাদের পদ্মমণি প্রাকার,

ঘুলিয়ে দিচ্ছে সব পা ডোবা ঘাসের মায়া কোমল আস্তরণ 

প্রাসাদ জানে গোপন ঘর আর আরও গোপন কৃষ্ণ অনুরাগ। 

 

খুব জানে মায়া তরু কোন বাতাসের ঘ্রাণ মাতোয়ারা মধুময় 

হাওয়া মোরোগের লেজ মাথা জানে কালো মেঘ নৈঋত প্রহর,

কতটা হৃদয় যন্ত্রণা ঘুরে দেখে ফেলে আসা হত্যার মাঠ খসড়া

সেখানে শব্দহীন রাতেরা নীরবে ফিরে যায় অদেখা আত্মার মতন। 

 

কতবার কতদিন প্রহর প্রহারে মিলেমিশে বিলীন আগুন রক্তবমি

তবুও বাহবা বিলাসে গলাউঁচু পারিষদ হাত তালি খোঁজে, 

ফোঁটা ফোঁটা শিশির তখন মুক্তা বিন্দু হেমন্ত ধানের শিসে

স্মৃতির ভেতরে প্রাণময় মুখেরা বাঁচে আগামী আগুন স্তবে। 

 

কোন মন্তব্য নেই:

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন