কুমকুম বৈদ্য

 বাসনা


একটা নদী  কিম্বা পাহাড় কিম্বা সমুদ্র কিম্বা শুধুমাত্র আগাছা

আমার ঘরের ছাদ ফাটিয়ে দেওয়া নাছোড় বট গাছটা

শিকড় বাড়িয়ে দেয় মাঝেমধ্যে

অগ্নুৎপাতের ছাই আমি কখনো কুড়িয়ে রাখিনি

নদীর বুকে একটা ডুবো পাহাড় আর সেই পাহাড়ের সুপ্ত আগ্নেয়গিরি

আমার বুকে লুকিয়ে ফেলেছি প্রায়

তুমি স্রোত হীন শান্তশিষ্ট নদীটির তীরে গুছিয়ে সংসার পাততেই পারো

আমি ও হাসিমুখে তোমাকে চান করাবো রোজ

তোমার ফেলে দেওয়া বাসি পূজোর ফুল রোজ বয়ে নিয়ে যাব পচনের আগ পর্যন্ত

যতদিন বুকে ঘুমিয়ে আছে মুখ

তারপর যেদিন সে ঘুম ভেঙ্গে উঠে বসবে

আর গোগ্রাসে পান করবে নদী , আর টান পড়বে জলে

তখন তুমি প্রাণের দায়ে ভাবতে বসো নিদেন পক্ষে সাগর বা সমুদ্র হতে দেওয়া উচিত ছিল

যদি ও আমি আসলে হতে চাইতাম প্রশান্ত মহাসাগর

 

কোন মন্তব্য নেই:

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন