পিনাকী দত্ত গুপ্ত

 স্বপ্ন-বিপর্যয়


কাচের ভেতর কাচ।

আলোর প্রতিবিম্ব খুঁজি,

রামধনু তে

উথলে ওঠে আঁচ।

 

মুখ পুড়িয়ে তাই,

ছায়ার কাছে গল্প শুনি,

পরশ-পাথর

একটু ছুঁতে চাই।

 

ঐ যে মরা একাদশীর চাঁদ।

ঐ যে ভরা দোঁয়াশ মাটির ঘর...

এই যে আমার ভিনদেশী এক ছাদ,

এই যে আমার ছন্নছাড়া স্বর...

কেমন যেন আবছা অন্ধকারে

আমায় দেখে দূর থেকে হাত নাড়ে।

 

আলের গায়ে আল।

লাঙল টানে কলুর বলদ,

খাল কেটে তাই

জল খোঁজে তিন কাল।

 

শরীর জুড়ে বান।

ভাসছে অতীত, আজ, আগামী

পন করেছি -

বেচবো না আর মান।

 

রাত বেড়েছে, এবার তবে যাই?

বুকের ভেতর হাপড় টানে পাপ।

ভাত কেড়েছে চরিত্রহীন ছাই,

শরীর জুড়ে বিষাক্ত নীল ছাপ!

তারপরেও অবিন্যস্ত সুখ

মন্দ আলোর গন্ধে ভরে বুক।

 

তারপরেও অনভ্যস্ত সুখ,

চাঁদের লোভে বিপন্ন, উন্মুখ।।

কোন মন্তব্য নেই:

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন